শিরোনাম
প্রচ্ছদ / কাতার / কাতারে ফ্রি ভিসায় এসে চরম বিপাকে বাংলাদেশি শ্রমিকরা (দেখুন ভিডিওসহ)।

কাতারে ফ্রি ভিসায় এসে চরম বিপাকে বাংলাদেশি শ্রমিকরা (দেখুন ভিডিওসহ)।

বিপাকে পড়েছেন ফ্রি ভিসার কাতার প্রবাসী বাংলাদেশিরা। একই সঙ্গে সে দেশের ভাষা না জানার কারণে চরম দুর্ভোগেও পড়েন তারা।এ অবস্থায় বাংলাদেশি শ্রমিকদের নির্ধারিত কোম্পানির অধীনে কাজ নিয়ে কাতারে যাওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন সে দেশে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত।

বাংলাদেশ দূতাবাসের তথ্য অনুযায়ী, কাতার বর্তমানে বাংলাদেশের দ্বিতীয় শীর্ষ শ্রমবাজার। মধ্যপ্রাচ্যে জনশক্তি রপ্তানি হচ্ছে একটি লোভনীয় ব্যবসা। কাতারে বহু বাংলাদেশি কোম্পানি এখন জনশক্তি রপ্তানির ব্যবসা করছে।তাদের ফ্রি ভিসার নামে বাংলাদেশিরা প্রতারিত হচ্ছেন স্বদেশেরই ভিসা ব্যবসায়ী এবং দালালদের কাছে।

বড় বড় কন্ট্রাক্টিং কোম্পানিতে তাদের প্রজেক্টের জন্য হাজারো শ্রমিকের দরকার হয়। রিক্রুুটমেন্ট কোম্পানিগুলো ভিসার জন্য এসব কোম্পানির এইচআর ডিপার্টমেন্টে ধর্ণা দেয়।  অনেক সময় কোম্পানির লোভী এইচআর ম্যানেজার কিংবা কর্মচারী মোটা অঙ্কের বিনিময়ে কোম্পানির ডিমান্ড লিস্টের ভিসাগুলো রিক্রুটমেন্ট এজেন্টদের কাছে বিক্রি করে দেয়।

রিক্রুটমেন্ট এজেন্ট তখন নিজের মুনাফা রেখে চড়া দামে ভিসা বিক্রি করে। কাতারসহ অন্যান্য আরব দেশে এই ধরনের প্রতারণার শিকার হচ্ছেন হাজারো বাংলাদেশি।ফ্রি ভিসায় আসা এসব শ্রমিকরা কোন গাড়ি দেখলেই ছুটে যান সে দিকে। অনেক হতভাগা শ্রমিক পাচ্ছে না তাদের ন্যায্য মজুরি, কারো দিন কাটছে অনাহারে।

কাতারে নির্মাণ শ্রমিক, গৃহকর্মী, মৎসজীবী, ইমামতি ও বিভিন্ন কোম্পানিতে শ্রমিক হিসেবে প্রায় ৩ লাখ বাংলাদেশি শ্রমিক কর্মরত রয়েছেন।তবে কাজ না জেনে ফ্রি ভিসায় কাতারে যেয়ে বিপাকে পড়ছেন অনেক বাংলাদেশি শ্রমিক। কাতারের রাজধানী দোহার নাজমা শুক আল হারেজ মার্কেটের সামনে প্রতিনিয়ত কাজ পাওয়ার আশায় ভিড় করছেন তারা।

এদিকে, কাতারে ফ্রি ভিসা নামে কোন ভিসা পদ্ধতি নেই উল্লেখ করে নির্ধারিত কোম্পানিতে চাকরি নিয়ে কাতারে আসার পরামর্শ দিয়েছেন দেশটিতে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত আসুদ আহমেদ।

এ পরিস্থিতিতে কাতারে কোন শক্তিশালী কমিউনিটি ও আরবি ভাষা শিক্ষার প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা না থাকায় ফ্রি ভিসায় না আসার পরামর্শ দিয়েছেন কাতার কমিউনিটি নেতা আব্দুল মতিন পাটোয়ারী।

প্রবাসীদের সকল ভিডিও খবর ইউটিউবে দেখতে সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেলটি: