শিরোনাম
প্রচ্ছদ / মালয়েশিয়া / পাহাড় ধসে মালয়েশিয়ায় চার বাংলাদেশির মৃত্যুঃ লাশের অপেক্ষায় পরিবার!

পাহাড় ধসে মালয়েশিয়ায় চার বাংলাদেশির মৃত্যুঃ লাশের অপেক্ষায় পরিবার!

মালয়েশিয়াতে ওয়ার্কপারমিটসহ পাসপোর্ট হাতে পেয়েই স্ত্রীর কাছে ফোন করে বলেছিল, ‘তুমি কি আমার পাসপোর্ট দেখিছাও, তুমি ব্যাংকে অ্যাকাউন্ট করো, আমি তোমার রুলি বানানোর জন্যি কাইলকেই টাকা পাঠাবো’।কথাগুলো বলছিলেন মালয়েশিয়া পাহাড় ধসে নিহত যশোরের ঝিকরগাছার সাগরপুর গ্রামের আক্তারুল ইসলাম। গত শুক্রবার বেলা ১২টার সময় নিহত আক্তারুল মোবাইলে তার স্ত্রী বিলকিস খাতুনকে এসব কথাগুলো বলেছিলেন।

তার আধা ঘণ্টা পরই আক্তারুলের সহকর্মীরা তার মৃত্যুর খবর দেন বাড়িতে। আক্তারুল সাগরপুর গ্রামের মোজাহার বিশ্বাসের ছেলে। আজ সোমবার সকালে সরেজমিনে গেলে জানা গেছে এসব কথা। তার বাকরুদ্ধ স্ত্রী শুধু বুক চাপড়ে বলছে আমার কি হবে? অবুঝ কন্যা তাজমীর মৃত্যুর খবর বোঝার বয়স হয়নি, তবে বাবা বাাড়ি আসবে বলে সে জানে। আক্তারুল ইসলাম ৫ বছর আগে শেষ সম্বল বিক্রি করে মালয়েশিয়া যান।

কিন্তু সে দেশে ওয়ার্কপারমিট করতে প্রতারণার শিকার হওয়ায়, বাড়িতে টাকা পাঠাতে পারেনি। আক্তারুল ইসলামের সাথে ঝিকরগাছা উপজেলার আরো ৩ যুবকের করুণ মৃত্যু ও একজনের আহতের খবরে এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

জানা গেছে, গত শুক্রবার মালয়েশিয়ার পোলাও পেনাং এর লাপাং লাপাং এলাকায় পাহাড় কেটে রাস্তা তৈরির সময় ভূমিধসে কয়েক’শ শ্রমিক হতাহত হন। নিহত অন্যরা হলো, উপজেলার গঙ্গানন্দপুর ইউপির কাগমারী গ্রামের জাহাঙ্গীর হোসেন ওরফে নাইজার ছেলে মিঠু, হাজিরবাগ ইউনিয়নের মুকুন্দপুর গ্রামের আলতাফ হোসেনের ছেলে উজ্জল হোসেন, পানিসারা ইউনিয়নের মোহিনীকাটি গ্রামের রবিউল ইসলামের ছেলে রাহাজ্জান আলী এবং গুরুতর আহত উপজেলার মুকুন্দপুর গ্রামের আব্বাস আলীরপুত্র শামিম রেজা।হতাহতরা সকলেই মামাতো, ফুফাতো ভাই। এ ঘটনায় ঝিকরগাছায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে। নিহতদের পরিবার লাশের অপেক্ষায়।

প্রবাসীদের সকল ভিডিও খবর ইউটিউবে দেখতে সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেলটি: