শিরোনাম
প্রচ্ছদ / প্রবাস / প্রবাসীর ভাগ্নি ছিল অসহায়, ধর্ষণ করতো মামীর ভাইয়া!

প্রবাসীর ভাগ্নি ছিল অসহায়, ধর্ষণ করতো মামীর ভাইয়া!

প্রবাসী স্বামীর কিশোরী ভাগ্নিকে এক বছর ধরে গৃহে আটকে জোরপূর্বক গৃহপরিচারিকার কাজে বাধ্য করেছেন মামী। বিভিন্ন সময়ে তার উপর যৌন নির্যাতন চালিয়েছে মামীর নেশাগ্রস্থ দুই ভাই ও তাদের বখাটে বন্ধুরা। আর এসবে সম্মত না হলেই তার উপর চালানো হয়েছে পাশবিক নির্যাতন।

এক পর্যায়ে মামাবাড়ি থেকে পালিয়ে এলে তার বিরুদ্ধে চুরির ঘটনা সাজিয়ে দেয়া হয়েছে মিথ্যে অপবাদ। এ ঘটনায় আদালতে মামলা দায়েরের পর অব্যাহত হুমকীতে রয়েছে কিশোরীর পরিবার।

ঘটনাটি বরগুনা জেলার তালতলী উপজেলার পঁচাকোড়ালিয়া ইউনিয়নের মনসাতলী গ্রামের প্রবাসী ইসমাইল তালুকদারের বাড়ির। ইসমাইল তালুকদারের ভাগ্নি নির্যাতিত ওই কিশোরীর বাড়ি একই জেলার সদর উপজেলায়। তার বাবা দিনমজুর।

দারিদ্রের কারণে একমাত্র কিশোরী কন্যার লেখাপড়া চালাতে অসামর্থ হওয়ায় মামীর অনুরোধে পঁচাকোড়ালিয়া ইউনিয়নের মনসাতলী গ্রামে মামার বাড়িতে লেখাপড়া করাতে পাঠিয়েছিলেন নির্যাতিতার দরিদ্র বাবা-মা।

কথাছিলো কিশোরী কন্যাকে লেখাপড়া করিয়ে ভাল পাত্র দেখে বিয়ের ব্যবস্থা করবেন মামী।

এ ঘটনার পর গত ২৯ আগষ্ট বরগুনার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে মামী লিপি বেগম (৪০) ও তার ভাই নান্নু তালুকদারসহ চারজনকে আসামী করে মামলা করেছেন নির্যাতিত কিশোরীর মা রোকেয়া বেগম (মামলা নং ৪৯০/১৮)।

নির্যাতনের শিকার কিশোরী ও ও মামলাসূত্রে জানা গেছে, নির্যাতিত ওই কিশোরীর মামা ইসমাইল তালুকদার মালয়েশিয়ায় শ্রমিকের কাজ করেন। তার অনুপস্থিতিতে তারই বাড়িতে স্ত্রী লিপি বেগমের আশ্রয় ও প্রশ্রয়ে তারই দুই ভাই নান্নু তালুকদার ও রাসেল তালুকদার স্থানীয় নেশাগ্রস্থ বখাটে যুবকদের নিয়ে নিয়মিত আড্ডা জমাত। এক পর্যায়ে প্রবাসী ইব্রাহিম মিয়ার ওই বাড়ি স্থানীয় মাদকাসক্তদের অভয়াশ্রমে পরিনত হয়।

বিভিন্ন সময়ে বখাটে ওই চক্রটি নির্যাতিত ওই কিশোরীকে জোরপূর্বক ধর্ষন করে। যৌন নির্যাতনের এসব ঘটনা গৃহকর্ত্রী লিপি বেগমকে জানালেও তিনি কোন প্রতিকার না করে উল্টো মারধর করেন ওই কিশোরীকে।

অনোন্যপায় হয়ে জীবন বাঁচাতে গত ২৩ আগষ্ট ঐ বাড়ি থেকে পালানোর চেষ্টা করে ধরা পড়ে যায় সে। তাকে পূণরায় আটক করে ঘর থেকে পালিয়ে যাওয়ার অপরাধে বেদম মারধর করেন লিপি বেগম।

প্রবাসীদের সকল ভিডিও খবর ইউটিউবে দেখতে সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেলটি: