শিরোনাম
প্রচ্ছদ / অন্যান্য / “বাসা ফাঁকা পেলেই নাবিদ আঙ্কেল আসেন’ অতঃপর প্রবাসীর ১১ বছরের মেয়েকে…….

“বাসা ফাঁকা পেলেই নাবিদ আঙ্কেল আসেন’ অতঃপর প্রবাসীর ১১ বছরের মেয়েকে…….

ক্লাস ফোরে পড়ে নাম রুম্পা (ছদ্ম নাম)। লম্বা ফর্সা। বয়স প্রায় ১১ । লাবণ্যময়ী চেহারা চোখে মুখে ঢলঢল করে। তবে একটু যেনো দিশেহারা। হঠাৎ সিমির পেটে ব্যাথা। উথাল পাথাল। সিমির মা বুঝে পান না, ব্যথার কারণ কী? টিউমার? চলে গেলেন ডাক্তােরের কাছে। আলট্রাসাউন্ড করানো হলো। রিপোর্ট দেখে তো চক্ষু চড়কগাছ!রুম্পার পেটে টিউমার না। বাচ্চা! ৩২ সপ্তাহ!

রুম্পার মায়ের মাথায় আকাশ ভেঙে পড়ে। দশ-এগারো বছরের একটা বাচ্চা। প্রেগন্যান্ট! কিন্তু কিভাবে?
সম্প্রতি ঢাকা মেডিক্যালের, মেডিক্যাল অফিসার ডা. ছাবিকুন নাহার ঠিক এমন পরিস্থিতির মুখোমুখি হয়েছেন।
খুব সহমর্মিতা নিয়ে প্রশ্ন করেন ডাক্তার ম্যাডাম। কিন্তু রুম্পা যেনো কিছু শুনছে না। কাঁধে হাত রাখেন ম্যাম। অভয় দেন।

: রুম্পা তোমার বয়স কত?
: দশ। তবে এখানে এগারো দিয়েছি। মা দিতে বলেছে।
শিশুসুলভ আচরণ প্রকট। আহারে মেয়ে! বড়দের লালসার ফাঁদে শিশু বয়সটা বিক্রি করে দিলে?

: তোমার মাসিক হয়?
রুম্পা মাসিক কাকে বলে জানে না। ওর মা উত্তর দেয়, ‘না। কখনো হয় নাই। বয়স তো বেশি না ম্যাডাম। এই সেদিন হলো মেয়েটা আমার।’ বলেই চোখ মুছেন রুম্পার মা।

: তোমাদের বাসায় কে কে থাকে?
: আমি, মা আর ভাইয়া। বাবা থাকেন বিদেশ। মাঝে মাঝে নাবিদ আংকেল আসেন।
কে এই নাবিদ আংকেল? আপনার বাসায়ও কি এই নাভিদ আংকের আসে?সাবধান থাকুন এই নাভিদ আংকের জন্য যেন আর কার জীবন সর্বনাশ না হয়।

প্রবাসীদের সকল ভিডিও খবর ইউটিউবে দেখতে সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেলটি: