প্রচ্ছদ / আরব আমিরাত / ভেঙ্গে গেল দুবাই ও কাতার প্রবাসীর বিয়ে

ভেঙ্গে গেল দুবাই ও কাতার প্রবাসীর বিয়ে

বাংলাদেশে গত তিন দিনে সাতক্ষীরাসহ ৯ জেলায় ১১টি বাল্যবিবাহ বন্ধ হয়েছে উপজেলা প্রশাসন এবং পুলিশের উদ্যোগে। মৌলভীবাজারের জুড়ী উপজেলায় গতকাল দুই স্কুলছাত্রীর বিয়ে বন্ধ করে উপজেলা প্রশাসন এবং পুলিশ। পরে অভিভাবকদের কাছ থেকে মুচলেকা আদায় করা হয়।

স্থানীয় বাসিন্দারা বলেন, বাল্যবিবাহ থেকে রক্ষা পাওয়া নবম শ্রেণির ছাত্রীর (১৫) বাড়ি উপজেলা সদরের জায়ফরনগর এবং সপ্তম শ্রেণির ছাত্রীর (১৩) বাড়ি পশ্চিম জুড়ী ইউনিয়নে। নবম শ্রেণির ছাত্রীর পরিবার অসচ্ছল। তার মামারা বেড়াতে নিয়ে যাওয়ার কথা বলে তাঁদের বাড়িতে নিয়ে দুবাইপ্রবাসী এক যুবকের সঙ্গে তার বিয়ে ঠিক করেছিলেন।

সপ্তম শ্রেণির ছাত্রীটির বাবা নেই। তাদের পরিবারও দরিদ্র। তার ভাইয়েরা নবম শ্রেণির ছাত্রীটির মামার সঙ্গে সপ্তম শ্রেণির ছাত্রীর বিয়ে ঠিক করেন। গতকাল রাতে ওই দুটি বিয়ে হওয়ার কথা ছিল। খবর পেয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) অসীম চন্দ্র বণিক ও জুড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জালাল উদ্দিন বিকেলে পুলিশ নিয়ে দুই ছাত্রীর বাড়িতে যান এবং অভিভাবকদের বুঝিয়ে বিয়ে বন্ধ করেন।

এছাড়া নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার মুছাপুর ইউনিয়নে সপ্তম শ্রেণির এক ছাত্রীর বিয়ে ছিল গতকাল দুপুরে। উপজেলা প্রশাসনের হস্তক্ষেপে সে বাল্যবিবাহ থেকে রক্ষা পায়। বিয়ের অনুষ্ঠানের জন্য রান্না করা খাবার স্থানীয় এতিমখানায় দিয়ে দেওয়া হয়।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. মাহফুজুর রহমান বলেন, ওই ছাত্রীর সঙ্গে উপজেলার রামপুর ইউনিয়নের কাতারপ্রবাসী মো. মহি উদ্দিনের (২৮) বিয়ের আয়োজন করা হয়। খবর পেয়ে তিনি পুলিশ নিয়ে মেয়ের বাড়িতে গিয়ে বিয়ে বন্ধ করেন।

বাল্যবিবাহ প্রতিরোধে সাধারণ মানুষের সচেতনতা বাড়লে এ ধরণের ঘটনা বন্ধ হবে বলে মনে করছেন অনেকে।

বাল্যবিবাহ আইন
বাল্যবিবাহ আইন, ১৯২৯ অনুযায়ী, কোনো ব্যক্তি কোনো শিশুকে বাল্যবিবাহ করতে বা করাতে বাধ্য করতে পারবে না। এখানে শিশু বলতে ওই ব্যক্তিকে বোঝাবে, যার বয়স পুরুষ হলে ২১ বছরের নিচে এবং নারী হলে ১৮ বছরের নিচে। তবে ২০১৫ সালে সরকার এ নীতিমালা সংশোধন করে মেয়েদের বিয়ের বয়স ১৮ রাখলেও ১৬-তে ইচ্ছা করলে পরিবারের পক্ষ থেকে বিয়ে দিতে পারবে বলে নির্ধারণ করা হয়।

বাল্যবিবাহ আইন, ১৯২৯-এর ১৯ ধারা অনুযায়ী, কোনো অভিভাবক ২১ বছর বয়সের নিচে পুরুষ বা ১৮ বয়সের নিচে কোনো মেয়ের হয়ে বাল্যবিবাহের চুক্তি করলে, তাঁর এক মাস পর্যন্ত বিনাশ্রম কারাদণ্ড বা এক হাজার টাকা পর্যন্ত জরিমানা বা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হবেন।

বরের শাস্তি
শিশু বিবাহকারী কেউ ২১ বছর বয়সোর্ধ্ব পুরুষ বা ১৮ বয়সোর্ধ্ব মহিলা হয়ে কোনো বাল্যবিবাহের চুক্তি করলে এক মাস পর্যন্ত বিনাশ্রম কারাবাসে বা এক হাজার টাকা পর্যন্ত বর্ধনযোগ্য জরিমানায় বা উভয় দণ্ডেই দণ্ডিত হবেন।

বিয়ে পরিচালনাকারীর শাস্তি
এ ছাড়া বাল্যবিবাহ সম্পন্নকারী, অনুষ্ঠান পরিচালনাকারী, নির্দেশ প্রদানকারীর এক মাস বিনাশ্রম কারাদণ্ড হবে বা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হবেন। যদি না তিনি প্রমাণ করেন যে তাঁর বিশ্বাস করার কারণ ছিল, ওই বিয়ে কোনো বাল্যবিবাহ ছিল না।

অভিভাবকের শাস্তি
বাল্যবিবাহের চুক্তি করেছেন এমন ভারপ্রাপ্ত যেকোনো ব্যক্তি, বাবা-মা বা অভিভাবককে ধরা হবে তিনি বা তারা উক্ত বিয়েতে উৎসাহদানের কাজ করেছেন অথবা ওই বিয়ে বন্ধ করায় অবহেলা করেছেন। এ ক্ষেত্রে তিনি এক মাস পর্যন্ত বর্ধনযোগ্য বিনাশ্রম কারাদণ্ড বা এক হাজার টাকা পর্যন্ত বর্ধনযোগ্য জরিমানায় বা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হবেন।

প্রবাসীদের সকল ভিডিও খবর ইউটিউবে দেখতে সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেলটি: