শিরোনাম
প্রচ্ছদ / মালয়েশিয়া / মালয়েশিয়ায় অবৈধ প্রবাসীদের জঙ্গলেই মঙ্গল !

মালয়েশিয়ায় অবৈধ প্রবাসীদের জঙ্গলেই মঙ্গল !

মালয়েশিয়ায় গ্রেফতার আতঙ্কে পালিয়ে বেড়াচ্ছেন অবৈধ বাংলাদেশিরা। প্রতিদিনই তাদের তাড়া করছে ইমিগ্রেশন পুলিশ। বাসায়, অফিসে, কারখানায়, মার্কেটে এমনকি বন-জঙ্গলেও দিনরাত চলছে পুলিশি অভিযান। তবুও কিছুটা হলেও বাসা থেকে জঙ্গলে লুকিয়ে ভালো আছেন বলে জানা গেছে। চলমান অভিযানে প্রতিনিয়ত অবৈধ বাংলাদেশিরা আটক হচ্ছেন। এ আটকে ভয়ে প্রবাসীরা মালয়েশিয়ার গভীর জঙ্গলে দিন যাপন করছেন। তবে কবে এ অভিযান থামবে সে বিষয়ে এখনো কোনো উত্তর মেলেনি।

অভিবাসন বিভাগের চিরুনি অভিযানে বৈধ হওয়ার আশ্বাসে সহায় সম্বল হারিয়েছে লাখ লাখ বাংলাদেশি। রেজিস্ট্রেশন করেও অনেকেই অবৈধ গ্লানি মাথায় নিয়ে জীবিকা নির্বাহ করছে। অব্যাহত এ অভিযানের ফলে অনেকেই রাতের আধারে জঙ্গলে লুকিয়ে রয়েছেন।

মালয়েশিয়ার বাংলাদেশ কমিউনিটিও এই ইস্যুতে ‘নীরব’। এত কিছুর পরও মুখ খোলেননি প্রবাসী বাংলাদেশিদের অর্ধশতাধিক সংগঠনের কেউ। মালয়েশিয়াতে বাংলাদেশের প্রধান প্রধান রাজনৈতিক দলগুলোর শাখা কমিটি থাকলেও তারা ‘অবৈধ’দের পাশে দাঁড়াচ্ছে না। তাদের দৃষ্টি কেবল ঢাকা-লন্ডন। ইদানিং মালয়েশিয়াতে ভিআইপি সফরও কমে গেছে। এর আগে প্রতি সপ্তাহে মিন্টু রোডের ভিআইপিদের মালয়েশিয়ার বুকিত বিন্তাং ও বিভিন্ন শপিংমলে দেখা গেলেও প্রবাসীদের তোপের মুখে পড়তে পারেন এই শঙ্কায় কেউ ওদিকে পা দিচ্ছেন না।

আতঙ্কিত বাংলাদেশির দিনে কাজে গেলেও রাতের বেলায় ঠিকমত ঘুমাতে পারছে না। ভয় একটায় কখন বুঝি পুলিশি অভিযান শুরু হয়!

একাধিক প্রবাসী এই প্রতিবেদককে জানান, আমরা সবাই প্রবাসী মন্ত্রীর আগমনকে ইতিবাচকভাবে নিয়েছিলাম এবং ভেবেছিলাম অবৈধ এবং প্রতারণার শিকার অভিবাসীদের পক্ষে জোর প্রচারণা এবং কূটনৈতিক প্রচেষ্টার মাধ্যমে আমাদের বৈধ হওয়ার সুযোগ করে দেবেন। কিন্তু প্রতিদিন মালয়েশিয়ায় অভিযানে আটক হচ্ছে কোন না কোন বাংলাদেশি। ইদানিংকালে আটকের মাত্রা বেড়েছে।

মালয়েশিয়ার সরকারি নির্দেশনায় বলা হয়েছে, যারা সমুদ্র পথে অনুপ্রবেশ করেছেন তারা কেউ বৈধতা পাবেন না। যারা স্টুডেন্ট ভিসায় মালয়েশিয়ায় গিয়ে তারপর পড়াশোনা বাদ দিয়ে চাকরিতে ঢুকেছে তারাও বৈধতা পাবেন না। এছাড়া যারা সিক্সপিতে রেজিস্ট্রেশন করেছেন এবং অনলাইন হয়েছে তারা কেউ বৈধতা পাবেন না।

মালয়েশিয়ায় বর্তমানে প্রায় ২০ লাখ বিদেশি শ্রমিক আছেন। এরমধ্যে বাংলাদেশি তিন লক্ষাধিক। এই অবৈধদের বেশিরভাগই ওপরের ওই তিন ক্যাটাগরির লোক। মালয়েশিয়ান সরকার যদি সিদ্ধান্ত না বদলায় তাহলে ওরা কেউ ‘বৈধ’ হতে পারবেন না। সব শর্ত পূরণ করার পর অবৈধদের মধ্যে ১০ শতাংশের বেশি বাংলাদেশি ‘বৈধতা’ পাবে না বলে জানান তিনি।

উল্লেখ্য, জি-টু-জি-প্লাস পদ্ধতিতে ১০টি এজেন্সির বদলে সব বৈধ রিক্রুটিং এজেন্সির মাধ্যমে বাংলাদেশি কর্মীদের মালয়েশিয়ায় পাঠানো হবে। প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থানমন্ত্রী নুরুল ইসলামের নেতৃত্বে মালয়েশিয়া সফররত বাংলাদেশি প্রতিনিধি দলের সঙ্গে দেশটির সরকারি কর্মকর্তাদের জয়েন্ট ওয়ার্কিং গ্রুপের দু’দফা বৈঠকের পর এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

প্রবাসীদের সকল ভিডিও খবর ইউটিউবে দেখতে সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেলটি: