সৌদিতে কারফিউ না মানলে প্রবাসীদের ফেরত পাঠানো হবে

করোনার প্রাদুর্ভাব মোকাবেলায় সৌদি আরবে জারি করা সান্ধ্য আইন বাস্তবায়নে কোনো রকম শিথিলতা দেখানো হবে না বলে জানিয়েছে দেশটির নিরাপত্তা কর্তৃপক্ষ। নির্দেশনা না মানলে জরিমানাসহ কারাদণ্ডের বিধান রাখা হয়েছে।

এ ছাড়া আইন অমান্য করলে প্রবাসী কর্মীদের দেশে পাঠিয়ে দেয়াও হতে পারে। সৌদির নিরাপত্তা কর্তৃপক্ষ জানায়, কারফিউর সময়ে ঘরের বাইরে বের হলে প্রথমবার ১০ হাজার রিয়াল জরিমানা করা হবে।

পুনরায় আইন ভঙ্গ করলে জরিমানার পরিমাণ দ্বিগুণ হবে। এর পরও যদি কেউ আইন অমান্য করে তা হলে অনূর্ধ্ব ২০ দিনের কারাদণ্ড দেয়া হবে।

এ ছাড়া আইন অমান্যের অপরাধে বিদেশি কর্মীদের ডিপোর্ট (দেশে পাঠিয়ে দেয়া হবে) করা হবে।

করোনাভাইরাস পরিস্থিতি মোকাবেলায় ২১ দিনের কারফিউ ঘোষণা করেছে সৌদি সরকার। সোমবার সন্ধ্যা থেকে শুরু হওয়া এই কারফিউ চলবে ১৩ এপ্রিল পর্যন্ত। এই সময়ে রোজ সন্ধ্যা ৭টা থেকে পর দিন সকাল ৬টা পর্যন্ত সর্বসাধারণের ঘরের বাইরে বের হওয়া নিষিদ্ধ রয়েছে।

সান্ধ্য আইন নিয়ে এ নির্দেশনার ফলে সন্ধ্যা ৭টা থেকে সকাল ৬টা পর্যন্ত বাইরে বের হওয়া নিষিদ্ধ থাকবে। আইন কার্যকরের জন্য পুরো সৌদিতে বিপুলসংখ্যক আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে মর্মে জানিয়েছে সৌদি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

সৌদি আরবে গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আরও ২০৫ জন করোনায় আক্রান্ত হওয়ার খবর দিয়েছে সৌদি স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়।

এ নিয়ে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়াল ৭৬৭ জন। আক্রান্তদের ১১৯ জনই সৌদির বাইরে থেকে আসা।

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে সৌদিতে মঙ্গলবার প্রথম কোনো মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে।

কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, করোনায় আক্রান্ত হয়ে মদিনা-মনোয়ারায় এক আফগান নাগরিক (৫১) মারা যান।

তবে নতুন করে কোনো বাংলাদেশি আক্রান্ত হওয়ার খবর পাওয়া যায়নি। এ পর্যন্ত নতুন আরও নয়জনসহ মোট ২৮ রোগী রোগমুক্ত হয়ে ঘরে ফিরেছেন।