শিরোনাম
প্রচ্ছদ / সৌদি আরব / সৌদি আরব থেকে খালি হাতে ফিরলেন আরও ১১০ পুরুষ শ্রমিক!

সৌদি আরব থেকে খালি হাতে ফিরলেন আরও ১১০ পুরুষ শ্রমিক!

মাত্র পাঁচ দিনের ব্যবধানে মধ্যপ্রাচ্যের দেশ সৌদি আরব থেকে দেশে ফিরেছেন মোট ৫৪১ পুরুষ শ্রমিক। এর মধ্যে গত ৩ অক্টোবর ১৪৪ জন, ৪ অক্টোবর ১৭০ জন, ৫ অক্টোবর ১১৭ জন এবং গতকাল ১১০ জন দেশে এসেছেন। ফেরত আসা শ্রমিকদের অভিযোগ বৈধ কাগজপত্র থাকার পরও জোর করে তাদের দেশে ফেরত পাঠানো হয়েছে।

ঢাকার বিমানবন্দরের ইমিগ্রেশন সূত্রে জানা যায়, গতকাল বেলা ২টায় সৌদি এয়ারলাইনসের একটি ফ্লাইটে (এসভি ৮০৬) প্রায় ১৫০ শ্রমিক দেশে ফিরেছেন। তবে তাদের মধ্যে ১১০ জন প্রবাসী কল্যাণ ডেস্কে নিবন্ধন করেছেন। বিমানবন্দরের প্রবাসী কল্যাণ ডেস্কের একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। ফিরে আসা শ্রমিকরা বলছেন, গতকাল তারা একসঙ্গে ১৫০ জন দেশে ফিরে এসেছেন। ফিরে আসা শ্রমিকদের প্রায় সবারই অভিযোগ, সৌদি সরকার তাদের ধরে ধরে দেশে পাঠিয়ে দিচ্ছে। সেখানে কথা শোনার মতো কেউ নেই।

দেশে ফিরে এসে বগুড়ার আকরাম হোসেন জানান, সৌদি আরবে প্রায় এক হাজার ২০০ বাংলাদেশি অপেক্ষমাণ আছেন দেশে ফেরার জন্য। সৌদি সরকার রাস্তা থেকে ধরে ধরে তাদের দেশে পাঠিয়ে দিচ্ছে বলে জানান এই শ্রমিক। তাই এক পোশাকে কিংবা একটি প্লাস্টিকের ব্যাগ হাতে করেই দেশে ফিরে আসতে তারা বাধ্য হচ্ছেন। ফেরত আসা এই শ্রমিক বলেন, বৈধ কাগজ (আকামা) থাকা সত্ত্বেও পুলিশ ধরে ধরে ডেপুটেশন সেন্টারে দিয়ে দিচ্ছে। আমাদের সব কাপড়, ব্যাগ ও পাসপোর্ট ওই দেশে রয়ে গেছে। কিছুই সঙ্গে নিয়ে আসতে পারিনি।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, সৌদি আরবের নাগরিকদের কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি করতে দেশটির সরকারের নেওয়া সাম্প্রতিক সিদ্ধান্তে বিপাকে পড়েছেন সে দেশে অবস্থানরত বিদেশি শ্রমিকরা। সৌদি সরকার ১২টি সেক্টরকে সৌদিকরণ করার ঘোষণায় গত ১৫ মাসে সাত লাখ ২০০ প্রবাসী শ্রমিক সে দেশ ছেড়ে চলে গেছেন। সৌদি আরব সরকারের পরিসংখ্যান দফতরের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, শুধু ২০১৭ সালেই সৌদি আরব ছেড়ে চলে গেছেন চার লাখ ৬৬ হাজার বিদেশি শ্রমিক। এছাড়া বিগত তিন মাসে দুই লাখ ৩৪ হাজার ২০০ শ্রমিক শ্রমবাজার ত্যাগ করেছেন। তবে এর মধ্যে কী পরিমাণ বাংলাদেশি আছেন, তা জানা সম্ভব হয়নি।

প্রবাসীদের সকল ভিডিও খবর ইউটিউবে দেখতে সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেলটি: